জীবন সঙ্গী বেছে নেয়ার আগে

জীবন-সঙ্গী বেছে নেয়ার আগে

জীবন-সঙ্গী বেছে নেয়ার সিদ্ধান্ত জীবনের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলোর একটি। জীবনসঙ্গী বেছে নেয়ার সিদ্ধান্ত যদি কোনভাবে ভুল হয়, তাহলে দু’জন মানুষকেই আজীবন যন্ত্রণা বয়ে বেড়াতে হয়। তাছাড়া, সঠিক জীবন-সঙ্গী বেছে নিলে বিবাহিত যেমন পরিপূর্ণতা পায়, সাথে সাথে পরিবারের বাকি সদস্যদের প্রতি দায়িত্ব পালন করাও সহজ হয়ে ওঠে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় দম্পতির মধ্যে বোঝাপড়া ভালো না হওয়ার কারণে সন্তানের ওপর তার খারাপ প্রভাব পড়ছে। এ কারণে জীবন-সঙ্গী বেছে নেয়ার সময় খুব সাবধান হওয়া উচিত।

১। কতটুকু চেনেন


কতটুকু চেনেন

নিজের জীবন-সঙ্গীকে খুব ভালো মত চেনা জরুরি। পছন্দ-অপছন্দ, ভালো-লাগা মন্দ লাগা, ব্যক্তিত্ব ইত্যাদি সবই জেনে নেয়া উচিত। অনেকেই মনে করে থাকেন বিয়ের পর এগুলো জেনে নেয়া যায়। যদি বিয়ের পর জীবন-সঙ্গী সম্পর্কে ভালোমত জেনে নেয়া সম্ভব হয়ও, তারপরও বিয়ের আগেই বোঝাপড়া জরুরি। বিয়ের পর যদি জীবন-সঙ্গীর অনেক কিছুই আপনার ভালো না লাগে, তাহলে তা কলহে রূপ নিতে পারে।


Wedding Dress Shopping For Bride & Groom


২। মানসিকতার মিল


মানসিকতার মিল

দু’জন মানুষের মধ্যে শতভাগ মানসিকতার মিল থাকা সম্ভব নয়। বরঞ্চ, ভিন্ন মানসিকতার দু’জন মানুষের দাম্পত্য জীবন বেশ রোমাঞ্চকরও এবং বৈচিত্রময়ও হতে পারে। কিন্তু, অন্তত এমন কিছু জায়গায় মানসিকতার মিল থাকা জরুরি, যা কি’না দাম্পত্য জীবনের ভিত গড়ে দেয়। উদাহরণ স্বরুপ, বিয়ের পর স্বামী চাইতে পারেন আলাদা থাকতে, স্ত্রী চাইতে স্বামীর পরিবারের সাথে একসাথে থাকতে। এ ধরনের অমিল থাকলে ভবিষ্যতে গিয়ে বড় ধরনের সমস্যা হতে পারে।

৩। পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ


পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ

দাম্পত্য সম্পর্ক যতটা না ভালোবাসার ওপর নির্ভর করে, ঠিক ততটাই কিন্তু নির্ভর করে পারস্পরিক শ্রদ্ধা-বোধের ওপর। জীবন সঙ্গী বেছে নেয়ার আগে তাই এই শ্রদ্ধাবোধের ব্যাপারটা নিশ্চিত করা জরুরি। স্বামী-স্ত্রী দু’জনেরই পরস্পরের ওপর শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে। বিয়ের পর অনেক সিদ্ধান্তই দু’জনকে একসাথে নিতে হয়। শ্রদ্ধাবোধ অটুট থাকলে এই সিদ্ধান্তগুলো নেয়া সহজ হয়ে আসে, কেননা একে অপরের ওপর সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়ার ব্যাপার খুব একটা ঘটে না।

৪। সততা


সততা

সম্পর্কের মধ্যে সততা থাকাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আপনার জীবন সঙ্গী সম্পর্কের ক্ষেত্রে, এবং ব্যক্তিগত জীবনের ক্ষেত্রে কতটুকু সৎ তা জেনে-বুঝে নেয়া উচিত। সততার ঘাটতি দেখা দিলে দাম্পত্য জীবনও বিষিয়ে ওঠে। সন্দেহ দানা বাঁধার কারণে অনেক সম্পর্কই ভেঙ্গে যায় এবং তিক্ততায় রূপ নেয়। তা’ই দু’জনকেই সম্পর্কের ব্যাপারে সৎ থাকতে হবে।

৫। আপনার জীবনের ওপর প্রভাব


আপনার জীবনের ওপর প্রভাব
সবশেষে, আপনার জীবন সঙ্গী আপনার জীবনের ওপর কেমন প্রভাব রাখবে তাও বুঝে নিন। আপনার নিজের ব্যক্তিগত লক্ষ্য থাকতে পারে, বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চাকাঙ্ক্ষাও থাকতে পারে। আপনার জীবন সঙ্গী এসব ক্ষেত্রে আপনার ওপর কেমন প্রভাব রাখতে তা বোঝার চেষ্টা করুন। যদি মনে হয় প্রভাব ইতিবাচক হবে না, এবং আপনার ব্যক্তিগত লক্ষ্যে পৌছানো এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষা পূরণ করা আরো কঠিন হয়ে আসবে, তাহলে সেই সম্পর্ককে আর সামনে নিয়ে না এগুনোই ভালো। উল্টো যদি মনে আপনার জীবন সঙ্গীর কারণে আপনি আরো অনুপ্রেরনা পাবেন, তাহলে অবশ্যই সেই জীবন-সঙ্গী আপনার জন্য একদমই আদর্শ।

Wedding Dress Shopping For Bride & Groom

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Categories

%d bloggers like this: